সিলভা ফার্মার পরিচালকদের নামে-বেনামে প্রায় ৩৩ কোটি টাকার প্লেসমেন্ট শেয়ার।

স্বপ্ন রোজ:-শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের চেয়ারম্যান জনাবা সিলভানা মির্জা হলেন,সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের পরিচালক জনাবা শামিনা মির্জা এবং পরিচালক ফারহানা মির্জার বোন। তা ছাড়া জনাবা সিলভানা মির্জা,শামিনা মির্জা,এবং ফারহানা মির্জা হলেন ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা: সায়রা খানের ননদ।

শুধু তাই নয়, জনাবা সিলভানা মির্জা,শামিনা মির্জা,এবং ফারহানা মির্জা তারা হলেন সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের শেয়ারহোল্ডার মো: আনোয়ার মির্জার মেয়ে এবং শেয়ারহোল্ডার এ আর হাসান মির্জার বোন। নামের টাইটেল দেখেই হয়তো আপনারা বুঝতে পারছেন। তাদের পারিবারিক বন্ধন অটল এবং নিখুঁত। শুধু পারিবারিক বন্ধন নয় ব্যবসায়ীক বন্ধনও নিখুঁত।

তাই সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডকে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত করেছেন ব্যবসা সম্প্রসারণ করতে।সেইজন্য গত বছর শেয়ারবাজার থেকে তুলেছেন ৩০ কোটি টাকা। এ টাকা দিয়ে কোম্পানিটি মেশিনারিজ যন্ত্রপাতি ও কলকব্জা কেনা, কারখানার ভবন নির্মাণ, ঋণ পরিশোধ এবং আইপিও খাতে খরচ করেছে।

আর সেই ৩০ কোটি টাকা তুলেছেন তারা সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের প্লেসমেন্ট শেয়ারে প্রায় ৩৩ কোটি টাকা বিনিয়োগ করে। ব্যবসা বানিজ্যের ইতিহাসের এই প্রথম কোন পরিচালকগন তার কোম্পানির সিংহভাগ শেয়ার কিনে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে।

আর এই আলোড়ন সৃষ্টি করতে সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের পরিচালকগনদের মানতে হয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের সকল দিক নির্দেশনা। নানান নির্দেশনা ও দিনের পর দিন অপেক্ষা করার পর চলে এসেছে এই বিনিয়োগকৃত টাকা উত্তলনের সময়। কথায় আছে সবুরে ম্যাওয়া ফলে।ফলতেও চলেছে, আসছে একের পর এক প্লেসমেন্ট শেয়ার লক ফ্রি হওয়ার সময়।

সেই বিনিয়োগকৃত ৩৩ কোটি টাকার বর্তমান মূল্য প্রায় ৫০ কোটি টাকা। সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের পরিচালকগন ব্যবসা বানিজ্যে পাকা, প্লেসমেন্ট শেয়ারে বিনিয়োগ করা টাকার অংক দেখলেই বুঝা যায়। কারণ কয়েক বছর ধরে ব্যবসা সম্প্রসারণ করার লক্ষে লাইন দিয়ে ছিলেন শেয়ারবাজার পাইপলাইন তালিকায়।

অনেক চড়াই উতরাই পেয়েছিল আইপিও অনুমোদন।নিজেদের কাছে নিজেরাই প্লেসমেন্ট শেয়ারের করেছে বাণিজ্য, কাগজেকলমে দেখিয়েছি সেই বিনিয়োগ। মির্জা পরিবার ও তাদের নামে বেনামে প্রতিষ্ঠানের নামে রেখেছেন প্রায় ৩৩ কোটি টাকার উপরে প্লেসমেন্ট শেয়ার। আর সেই প্রতিষ্ঠানের তালিকায় আছে কিছু অস্তিত্বহীন প্রতিষ্ঠান। চলবে……….

আলোচিত সংবাদ / ১৩ অক্টোবর ১৯

কমেন্ট করুণ

দয়া করে আপনার কমেন্ট করুণ
দয়া করে আপনার নাম দিন