ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল বিদেশযাত্রার হার কমাবে:দেবী শেঠী

0

ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল বাংলাদেশে সঠিক ও উন্নত স্বাস্থ্যসেবার নতুন সংযোজন।
ভালো চিকিৎসার জন্য ভারত, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়াসহ বিভিন্ন দেশে
যাওয়া বাংলাদেশি মানুষের সংখ্যা প্রতিবছর বাড়ছে। এই হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার ফলে
এ প্রবণতা অনেকাংশে হ্রাস পাবে।ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল উদ্বোধনের মাধ্যমে বাংলাদেশে
এই প্রথম আন্তর্জাতিকমানের পরিকল্পিত স্বাস্থ্যসেবা চালু হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন
খ্যাতিমান হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. দেবী প্রসাদ শেঠী।

শনিবার সকালে চট্টগ্রামের পাহাড়তলী চক্ষু হাসপাতালের পাশে প্রায় ৯০০ কোটি
টাকা ব্যয়ে নির্মিত ইম্পেরিয়াল হাসপাতালের উদ্বোধনকালে আয়োজিত সুধী সমাবেশে
তিনি এ মন্তব্য করেন।

এতে থাকছে ৫৮টি ক্রিটিকাল কেয়ার বেড, ৪৪ শয্যার নিওনেটাল ইউনিট এবং
আট শয্যার পেডিয়াট্রিক আইসিইউ।সার্বক্ষণিক ইমার্জেন্সি ও কার্ডিয়াক, ট্রান্সপ্ল্যান্ট,
নিউরো, অর্থপেডিক ও গাইনি অবস সম্বলিত ১৪টি মডিউলার অপারেশন থিয়েটার
আছে এ হাসপাতালে।

বেসরকারি এই হাসপাতালে আছে ৮৮টি সিঙ্গেল কেবিন ও ৭৬টি ডাবল কেবিন।
রোগীর স্বজনদের জন্য হাসপাতাল প্রাঙ্গণে অন্য একটি ভবনে থাকার ব্যবস্থা করা
হয়েছে।অনুষ্ঠানে জানানো হয়, সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ, রোগী নিরাপাত্তা এবং কর্মী
নিরাপত্তাকে প্রাধান্য দিয়ে হাসপাতালটি নির্মাণ করা হয়েছে। এখানে ১০ শতাংশ
অস্বচ্ছল রোগিদের নিয়মিত সেবা দেয়া হবে। হাসপাতালের বহির্বিভাগে ৬২ জন
কনসালটেন্ট নিয়মিত সেবা দেবেন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে ইমপেরিয়াল হসপিটাল লিমিটেডের (আইএইচএল)
বোর্ড চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. রবিউল হোসেন বলেন, উন্নত স্বাস্থ্যসেবার
অপ্রতুলতায় বহু রোগী বিদেশে যেতে বাধ্য হচ্ছে। এতে তাদের ও তাদের পরিবারকে
আর্থিক, মানসিক ও শারীরিক চাপের মুখে পড়তে হয়।

এ অবস্থা থেকে কিছুটা মুক্তি পেতে উন্নত বিশ্বের আলোকে হাসপাতালটি প্রতিষ্ঠা
করা হয়েছে।অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম
সদস্য সাংসদ ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।
সভাপতিত্ব করেন আজাদী সম্পাদক এম এ মালেক।

সূচনা বক্তব্য রাখেন হাসপাতালের কমিশনিং কনসালটেন্ট এড লি হ্যানসন এবং
ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন হাসপাতালের এমডি আমজাদুল ফেরদৌস চৌধুরী।

আলোচিত সংবাদ/এসআর/১৫/০৬/১৯ইং

কমেন্ট করুণ

দয়া করে আপনার কমেন্ট করুণ
দয়া করে আপনার নাম দিন